সোমবার, ২২ জুলাই ২০২৪, ০২:১৯ পূর্বাহ্ন

তেঁতুলঝোড়ায় ভিজিডি’র চাল বিতরণ

সাভার প্রতিনিধি
  • সর্বশেষ আপডেট : বৃহস্পতিবার, ১২ জানুয়ারি, ২০২৩
  • ১৬৮ বার পড়া হয়েছে /

অর্ধশতাধিক নারী-পুরুষের জটলা। তাঁদের মধ্যে প্রবীণ ও মধ্যবয়স্ক নারীর সংখ্যাই বেশি। স্কুলের পোশাক পরা কিছু শিক্ষার্থী ও কিশোর–কিশোরীও আছে সেখানে। ছোট ছোট দলে জটলা পাকিয়ে গল্পগুজব করে সময় পার করছে এসব মানুষ। কাছে গিয়ে অপেক্ষার কারণ জানতে চাইলে তাঁরা বলেন, ভিজিডি কার্ডের আওতায় তাদের জন্য চালের ব্যাবস্থা করেছেন তেঁতুলঝোড়া ইউনিয়নের চেয়ারম্যান ফখরুল আলম সমর সে জন্য অপেক্ষা। তবে এ অপেক্ষা যেনো তাদের কাছে বিরক্তিকর নয় বরং আনন্দের।

কিছু সময় পর চেয়ারম্যান এসে সবার সাথে হাসি মুখে কথা বলে, এক মুহুর্তের জন্য মনে হচ্ছিল এখানে চাল নিতে আসা সবাই তার ঘরের মানুষ। সে নিজে হাতেই সাভারের তেঁতুলঝোড়া ইউনিয়নে ভিজিডি কার্ডের আওতায় ৮১ অসহায় ও হতদরিদ্র পরিবারের মাঝে ৩০ কেজি করে চাল বিতরণ করেন।

বৃহস্পতিবার (১২ই জানুয়ারি) সাভারের তেঁতুলঝোড়া ইউনিয়ন পরিষদ কার্যালয়ে ৯টি ওয়ার্ডে সর্বমোট ৮১ জন অসহায় ও হতদরিদ্র পরিবারের মাঝে এই ত্রাণ সামগ্রী বিতরণ করেন সাভার উপজেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ও তেঁতুলঝোড়া ইউনিয়নের চেয়ারম্যান ফখরুল আলম সমর।

ত্রাণ পেয়ে উচ্ছ্বাস প্রকাশ করে তেঁতুলঝোড়া ঝাউচর গ্রামের সত্তরোর্ধ্ব মকবুল হক বলেন, তিনি বয়সজনিত নানা রোগে ভুগছেন। পরিবারে স্ত্রী ও প্রতিবন্ধী এক সন্তান আছে। এর ফলে সংসার চালাতে ভিক্ষাবৃত্তি করেন। এ চাল পাওয়ায় আগামী অনেক দিনের জন্য তাঁর পরিবারের খাবারের চিন্তা দূর হয়েছে।

স্বামীহারা ষাটোর্ধ্ব আফতাবা বেগম। অন্যের বাড়িতে কাজ করে সংসার চালান। ভিজিডি কার্ডের সহায়তায় তেঁতুলঝোড়া ইউনিয়নের চেয়ারম্যান ফখরুল আলম সমরের দেওয়া চালের প্যাকেট পেয়ে তিনি আনন্দে কেঁদে ফেলেন। ইউনিয়ন পরিষদে থেকে চাল নিয়ে আফতাবা বলেন, ‘ঘরে খাওন নাই, ত্রাণ পাইয়া খুশি লাগতাছে।’ আজকে এমন প্রথম না, যখন কারো কাছে হাত পাততে পারি নাই সেই সময়ও চেয়ারম্যান আমাদের কথা ভেবেছে, কিভাবে জানি না কিন্তু “চেয়ারম্যান আমাগো মনের কথা বুঝে।”

এসময় চাল নিতে আসা সকলের উদ্দেশ্যে ইউনিয়নের চেয়ারম্যান ফখরুল আলম সমর বলেন,“শেখ হাসিনার বাংলাদেশ-ক্ষুদা হবে নিরুদ্দেশ” শ্লোগানকে সামনে রেখে ভিজিডি উপকার ভোগীদের মাঝে কার্ড ও চাল বিতরণ করা হয়েছে। গত দুই বছর পর্যন্ত আপনাদের প্রধানমন্ত্রীর দেয়া এই উপহার সঠিকভাবে পৌঁছে দিয়েছি।২০২১- ২০২২ অর্থ বছরে ভিজিডি কর্মসূচীর আওতায় আজকেই শেষ হতে যাচ্ছে, আগামী মাস থেকে আবারো আগামী দুই বছরের জন্য নতুন উপকারভোগী ভিজিডি কার্ড নিয়ে আসবেন। এতদিন পর্যন্ত সুখে দুঃখে সর্বক্ষণ আমি পাশে থাকার চেষ্টা করেছি সব সময় থাকবো।আপনারা সকলে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সুস্থতার জন্য দোয়া করবেন।

এসময় উপস্থিত ছিলেন ইউপি সচিব মীর আব্দুল বারেক, সাভার উপজেলার ট্যাগ অফিসার ঝুমকা, ইউপি সদস্য শাহ আলম, ফিরোজ কাজল সহ আরো অনেকে ।২০২১-২০২২ চক্রের ভিজিডি উপকারভোগীরা তাদের সঞ্চয়ী অর্থ নিজ, নিজ ব্যাংক একাউন্ট থেকে উত্তোলন করতে পারবেন।

আরো পড়ুন

এস এন্ড এফ মিডিয়া কমিউনিকেশন লিমিটেড © সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

Developer Design Host BD