বৃহস্পতিবার, ২৫ জুলাই ২০২৪, ১২:৫৭ অপরাহ্ন

ঝিকরগাছা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে মৌমাছির কামড়ে গর্ভবতী মহিলার স্বামীর মৃত্যু

জহিরুল ইসলাম, ঝিকরগাছা (যশোর) প্রতিনিধি
  • সর্বশেষ আপডেট : বুধবার, ১৫ মার্চ, ২০২৩
  • ১০১ বার পড়া হয়েছে /

যশোর জেলার ঝিকরগাছা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে মৌমাছির কামড়ে গর্ভবতী এক মহিলার স্বামীর  মৃত্যু হয়েছে। নিহতের নাম জাহিদ হাসান আকাশ (২৮)।  তিনি ঝিকরগাছা সদর ইউনিয়নের পায়রাডাঙা গ্রামের জাকির হোসেনের বড় ছেলে ও ইউনিয়ন ছাত্রদলের সহসভাপতি। এ ঘটনায় উক্ত এলাকায় শোকের ছায়া নেমে এসেছে।আকাশের ছোট ভাই রাহুল (২২) জানান, তার ভাই পেশায় একজন রিকশা চালক। আকাশের সন্তান সম্ভবা স্ত্রী পিংকি খাতুন (২০) হঠাৎ অসুস্থ হয়ে পড়ায় গত রবিবার তাকে ঝিকরগাছা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়। ঐদিন রাতে আকাশ তার স্ত্রীর সাথে হাসপাতালেই  ছিলো। ঘটনার দিন ফজরের নামাজের সময় আকাশকে একের অধিক মৌমাছি কামড় দেয়। কিছু সময় পরে সে ছটফট করতে থাকে। এ অবস্থা দেখে  নার্স জরুরি বিভাগের ডাক্তার ডেকে নিয়ে আসে। ডাক্তার আকাশের  শরীরে দুইটা ইনজেকশন পুশ করার পরপরই আকাশের মুখ দিয়ে ফ্যানা বের হয়ে দেহ নিথর হয়ে যায়। রাহুল জানান, হাসপাতাল থেকে ভাবীর ফোন পেয়ে আমি আর মা হাসপাতালে পৌঁছে দেখি ভাই নিথর হয়ে পড়ে আছে। ভাই মারা গেছে নাকি বেঁচে আছে এর কোন  উত্তর না দিয়ে ডাক্তাররা আমার ভাইকে যশোর সদর হাসপাতালে নিয়ে যেতে বলেন। ঐ অবস্থায় যশোর সদর হাসপাতালে নেয়া হলে সেখানকার জরুরি বিভাগের চিকিৎসক জানান, অনেক আগেই তার মৃত্যু হয়েছে।মাত্র ৩টা মৌমাছির কামড়ে মৃত্যু হয়েছে এটা কেউ বিশ্বাস করতে পারছে না। স্বজনদের ধারণা অন্য কোনো কারণে বা ইনজেকশনের পার্শ্বপ্রতিক্রিয়ার ফলে আকাশের মৃত্যু হতে পারে।ঝিকরগাছা উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডাক্তার রশিদুল আলম বলেন, মৌমাছির কামড়ের ফলে ঐ রোগীর প্রেশার অনেক কমে যায়, শরীর ঠান্ডা হয়ে যায়, মুখ দিয়ে ফ্যানা বের হতে থাকে। মেডিকেলের ভাষায় একে Anaphylaxis shock বলে। এর একমাত্র ঔষধ হলো Hydrocortison ইনজেকশন। কর্তব্যরত চিকিৎসক ঐ ইনজেকশন প্রদান করেন কিন্তু রোগীর কোন উন্নতি না হওয়ায় ২৫০ বেড জেনারেল হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়। পরবর্তীতে রোগীটি উক্ত হাসপাতালে মারা যান।এদিকে পরিবারের একমাত্র উপার্জনক্ষম ব্যক্তিকে হারিয়ে ১৬ মাস বয়সী শিশু সন্তান ও গর্ভের সন্তানকে নিয়ে আকাশের স্ত্রী এবং তার পরিবার এখন চরম অনিশ্চয়তার মধ্যে পড়েছে।

আরো পড়ুন

এস এন্ড এফ মিডিয়া কমিউনিকেশন লিমিটেড © সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

Developer Design Host BD