রবিবার, ১৪ জুলাই ২০২৪, ১২:৫২ পূর্বাহ্ন

সাভারে বিট পুলিশিং কমিটির সভাপতির পরিবারের বেশির ভাগই অপরাধী

সাভার প্রতিনিধি 
  • সর্বশেষ আপডেট : সোমবার, ১৯ জুন, ২০২৩
  • ১০৮ বার পড়া হয়েছে /

জনগণের কাছে কার্যকর সেবা পৌঁছানোর পাশাপাশি পুলিশের কার্যক্রমকে গতিশীল করতে যে ‘বিট পুলিশিং’ চালু হয়েছে সাভারের বিভিন্ন বিটে, তার মধ্যে সাভার পৌরসভার ৩ নং ওয়ার্ড কমিটি নিয়ে রয়েছে এলাকাবাসীর অসন্তোষ। বিট পুলিশের এই কমিটির সভাপতির দায়িত্বে থাকা মো. মজিবর রহমানের পরিবারের সদস্যদের অধিকাংশই বিতর্কিত, মামলার আসামি, মাদক বিক্রেতা ও কিশোর গ্যাং লিডার বলে অভিযোগ রয়েছে। ফলে জনগণকে সেবা দেয়ার প্রত্যয়ে গড়ে ওঠা বিট পুলিশিং নিয়ে বাড়ছে সমালোচনা।সম্প্রতি ৩নং ওয়ার্ডের ছায়াবীথি এলাকায় চাঁদাদাবী ও বিচারের নামে ডেকে নিয়ে দুই নারীসহ তিনজনকে মারধর ও ধারালো অস্ত্র দিয়ে আঘাত করে যখমের ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় স্থানীয় কিশোর গ্যাং লিডার রাব্বি ওরফে পিনিক রাব্বিকে প্রধান আসামী করে সাভার মডেল থানায় একটি মামলা দায়ের হয়েছে। আর এই পিনিক রাব্বি হচ্ছে এই এলাকার বিট পুলিশিং কমিটির সভাপতির দায়িত্বে থাকা মুজিবর রহমানের ভাতিজি জামাই। এই পিনিক রাব্বির বিরুদ্ধে এর আগেও থানায় একাধিক মামলা রয়েছে বলে অভিযোগ আছে।এ বিষয়ে নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক ৩নং ওয়ার্ড আওয়ামীলীগের এক নেতা জানান, আমাদের এই ৩নং ওয়ার্ডে কিশোর গ্যাং ও মাদক ব্যাবসা নিয়ন্ত্রণসহ চাঁদাবাজি ও ছিনতাইয়ের যত ঘটনা ঘটে তার মূলহোতা এই পিনিক রাব্বি ও তার সহযোগীরা।এছাড়াও মো. মুজিবর রহমানের পরিবারের আরো বেশ কজন সদস্যের বিরুদ্ধেও রয়েছে একাধিক মামলা ও অভিযোগ তারা হলেন, মুজিবরের ভাগিনা ভিকি মামুন তার বিরুদ্ধে থানায় চুরি, ছিনতাই ও মার্ডারসহ একাধিক মামলা রয়েছে অন্যদিকে মুজিবরের মেয়ের জামাই বিল্লালের বিরুদ্ধে এলাকায় মাদক ব্যাবসা নিয়ন্ত্রণের অভিযোগ রয়েছে।এবিষয়ে স্থানীয় ৩নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর সানজিদা শারমিন মুক্তা বলেন, আমি একাধিকবার এই এলাকার জনগণের ভোটে নির্বাচিত জনপ্রতিনিধি কিন্তু এই এলাকার আইনশৃঙ্খলা দেখাভালের জন্য গঠিত বিট পুলিশিং কমিটি ঘটনের ব্যাপারে আমাকে কিছুই অবগত করা হয়নি। এমনকি গতকাল বিট পুলিশিং নিয়ে আয়োজিত মতবিনিময় সভা ও উঠান বৈঠকেও আমাকে আমন্ত্রণ জানানো হয়নি। কারা কিভাবে আমাদের এলাকার চিহ্নিত একটি অপরাধী পরিবারের সদস্যকে এই কমিটির সভাপতি হিসেবে মনোনীত করেছে সেটিও আমার অজানা। আমি অবিলম্বে এই আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের এ বিষয়ে দৃষ্টি দেয়ার আহ্বান জানাচ্ছি।এ ব্যাপারে অভিযুক্ত মুজিবর রহমানের কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, আমি দলের কর্মী আমার অতো টাকা পয়সা নেই তাই টাকাওয়ালা মানুষরা এগুলা ছড়ায় আমার সন্তানরা কেও কোন বাজে কাজে নেই। তার ভাতিজি জামাই পিনিক রাব্বি এবং ভাগিনে ভিকি মামুনের মামলার সম্পর্কে জিজ্ঞেস করলে তিনি বলেন, তারা তো আমার রক্ত না তাদের আমি পরিচয় দেইনা তাদের বিরুদ্ধে মামলা আছে সেটা তো আমার অন্যায় না।এ বিষয়ে সাভার মডেল থানার পুলিশ পরিদর্শক (অপারেশন) নয়ন কারকুন বলেন, বিট পুলিশিং কমিটিতে কোন বিপথগামী এবং যাকে নিয়ে কোন ধরনের বিতর্ক রয়েছে তারা কোনভাবেই থাকতে পারবেনা। বিষয়টি নিয়ে আমি আমার ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের সাথে আলোচনা করব।

আরো পড়ুন

এস এন্ড এফ মিডিয়া কমিউনিকেশন লিমিটেড © সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

Developer Design Host BD