সোমবার, ২০ মে ২০২৪, ০৪:১৯ অপরাহ্ন

পাকিস্তানকে হারিয়ে বিশ্বকাপ ইংল্যান্ডের

স্পোর্টস ডেস্ক
  • সর্বশেষ আপডেট : রবিবার, ১৩ নভেম্বর, ২০২২
  • ৮৮ বার পড়া হয়েছে / ইপেপার / প্রিন্ট ইপেপার / প্রিন্ট

টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের ফাইনালে পাকিস্তানকে ৫ উইকেটে হারিয়ে ১২ বছর পর চ্যাম্পিয়ন হলো ইংল্যান্ড। আজ রবিবার (১৩ নভেম্বর) মেলবোর্ন ক্রিকেট গ্রাউন্ডে পাকিস্তান আগে ব্যাট করে ৮ উইকেটে ১৩৭ রান তোলে। এর জবাবে বেন স্টোকসের অপরাজিত হাফ সেঞ্চুরিতে ভর করে ৫ উইকেট ও ৬ বল হাতে রেখে জয় তুলে নেয় ইংলিশরা। এই হিসেবে দুইবার টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের শিরোপা ঘরে তোলে ইংলিশরা।পাকিস্তানের দেওয়া টার্গেটে ব্যাট করতে নেমে দলীয় ৭ রানেই উইকেট হারায় ইংল্যান্ড। সেমিফাইনালে ভারতীয় বোলারদের পাড়া মহল্লার বোলার বানিয়ে ফেলা ব্যাটার অ্যালেক্স হেলসকে দুর্দান্ত বোল্ড করেন শাহিন শাহ আফ্রিদি। দলীয় ৩২ রানে ফিল সল্টকে ইফতিখারের ক্যাচ বানিয়ে ইংলিশ শিবিরে দ্বিতীয় ধাক্কা দেন হারিস রউফ। তৃতীয় উইকেটে অধিনায়ক বাটলার অলরাউন্ডার বেন স্টোকসকে নিয়ে ১৩ রানের জুটি গড়েন। দলীয় ৪৫ রানে বাটলারকে উইকেটের পেছনে রিজওয়ানের ক্যাচ বানিয়ে প্যাভিলিয়নের পথ দেখান হারিস রউফ।টস হেরে আগে ব্যাট করতে নেমে পাওয়ারপ্লের সুবিধা নিতে ব্যর্থ হয় পাকিস্তান। তাই রান বাড়াতে ইংলিশ বোলারদের ওপর আগ্রাসী হয়ে উঠেছিলেন দুই ওপেনার। চতুর্থ ওভারের প্রথম বলে ওকসকে ছক্কা মারেন রিজওয়ান। পরের ওভারে তাকে ফেরত পাঠান কুরান। কুরানের ওয়াইড লাইনের বল তার ব্যাটে লেগে স্টাম্পে আঘাত করে। ১৪ বলে ১ ছয়ে ১৫ রান করে আউট হন রিজওয়ান। তখন পাকিস্তানের দলীয় রান মাত্র ২৯।দলীয় ৪৫ রানে ১২ বল খেলে ৮ রান করে বিদায় নেন মোহাম্মদ হারিস। আদিল রশিদের বলে স্টোকসের হাতে ক্যাচ দিয়ে ফেরেন তিনি। তৃতীয় উইকেটে বাবর ও শান মাসুদ ইনিংস মেরামতের চেষ্টা চালান। কিন্তু দলীয় ৮৪ রানে বাবর আদিল রশিদের দ্বিতীয় শিকারে পরিণত হন। বাবরের বিদায়ের পর রানের খাতা খোলার আগেই ইফতিখারকে বিদায় করেন স্টোকস। ইফতিখার ৬ বল থেকে ০ রান করেন।পঞ্চম উইকেটে শান মাসুদ ও শাদাব খান স্কোরবোর্ড সচল রাখার চেষ্টা চালান। দলীয় ১২১ রানে ২৮ বলে ৩৮ রান করা শান মাসুদকে আউট করে ৩৬ রানের জুটি ভাঙেন কুরান। শানের বিদায়ের ২ রান পর শাদাবকে নিজের শিকার বানান ক্রিস জর্ডান। তখন দলীয় রান ১২৩। মোহাম্মদ নওয়াজও বেশিক্ষণ থাকতে পারেননি। ৭ বলে ৫ রান করে দলীয় ১২৯ করে কুরানের তৃতীয় শিকারে পরিণত হন নওয়াজ। বিশ্বকাপে ১৩ উইকেট নিয়ে দ্বিতীয় সর্বোচ্চ উইকেট শিকারিতে পরিণত হন কুরান। দলীয় ১৩১ রানে মোহাম্মদ ওয়াসিমকে বিদায় করে ম্যাচে দ্বিতীয় উইকেট শিকার করেন জর্ডান। শেষ পর্যন্ত পাকিস্তান ৮ উইকেট হারিয়ে মাত্র ১৩৭ রান সংগ্রহ করে। জিততে হলে ইংল্যান্ডকে করতে হবে ১৩৮ রান।ইংল্যান্ডের হয়ে স্যাম কুরান ৩টি, ক্রিস জর্ডান ও আদিল রশিদ ২টি এবং বেন স্টোকস একটি উইকেট লাভ করেন। পাকিস্তান এবং ইংল্যান্ড-দুই দলই এর আগে একবার করে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের শ্রেষ্ঠত্বের মুকুট মাথায় তুলেছে। ২০০৯ সালে ইংল্যান্ডের মাটিতে চ্যাম্পিয়ন হয়েছিল পাকিস্তান, ওয়েস্ট ইন্ডিজে অনুষ্ঠিত তার ঠিক পরের আসরে (২০১০) শিরোপা ঘরে তোলে ইংল্যান্ড। অর্থাৎ দুই দলের সামনেই এবার দ্বিতীয় শিরোপার হাতছানি।

আরো পড়ুন

এস এন্ড এফ মিডিয়া কমিউনিকেশন লিমিটেড © সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

Developer Design Host BD