মঙ্গলবার, ১৬ এপ্রিল ২০২৪, ০১:১১ অপরাহ্ন

চ্যাটবটে বেড়েই চলেছে বিনিয়োগ

অনলাইন ডেস্ক
  • সর্বশেষ আপডেট : রবিবার, ৫ মার্চ, ২০২৩
  • ৩৪৪ বার পড়া হয়েছে / ইপেপার / প্রিন্ট ইপেপার / প্রিন্ট

কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা খাতের অন্যতম উদ্ভাবন চ্যাটজিপিটি। এর সাফল্যের পর চ্যাটবট নিয়ে আগ্রহী হয়ে উঠেছে বড় বড় প্রতিষ্ঠান। মাইক্রোসফট, গুগল, মেটা থেকে শুরু করে কোরিয়া, চীনের প্রযুক্তি কোম্পানিগুলো এখন বিনিয়োগ বাড়াচ্ছে চ্যাটবটে। এগুলোকে মানুষের জন্য আরও সুবিধাজনক এবং ব্যবহারোপযোগী করার জন্য গবেষণায় মত্ত টেক জায়ান্টরা।

তবে অন্যান্য কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তাভিত্তিক উদ্ভাবনের মতোই সব চ্যাটবটেরও সীমাবদ্ধতা আছে, এসব ত্রুটির কারণে অনেক সমালোচনাও হয়ে থাকে। এমনকি শেয়ারবাজারে দরপতনের ঘটনাও সামনে এসেছে।

প্রসঙ্গত, চ্যাটবট হলো এক ধরনের কম্পিউটার প্রোগ্রাম বা সফটওয়্যার, যা কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা দিয়ে গঠন করা। এতে অসংখ্য তথ্যই শুধু থাকে না। কখন তা কীভাবে ব্যবহার করতে হবে সে সম্পর্কে প্রশিক্ষিতও করা হয়। ফলে ডিভাইসের মাধ্যমে মানুষের মতো করেই এটি যোগাযোগ স্থাপন করতে পারে- মেসেজের রিপ্লাই দিতে পারে।

অন্যান্য চ্যাটবটের মতোই চ্যাটজিপিটিও দ্রুত সময়ে সাড়া দিতে সক্ষম। শুধু তা-ই নয়, আরও কিছু আকর্ষণীয় ফিচার রয়েছে এটির। রচনা লেখা থেকে শুরু করে গানের লিরিক্স, গল্প, এমনকি কবিতা লিখতেও নির্দেশ দেওয়া যাবে এই চ্যাটবটকে। সানফ্রান্সিসকোভিত্তিক ওপেন এআই এটির নির্মাতা প্রতিষ্ঠান।

চ্যাটজিপিটির সাফল্যের পর চ্যাটবট প্রযুক্তির ওপর গুরুত্ব দিয়েছে বিশ্বের টেক জায়েন্টগুলো। গত ৭ ফেব্রুয়ারি মাইক্রোসফট তার নিজস্ব সার্চ ইঞ্জিন বিং-এ চ্যাটজিপিটি যুক্ত করার ঘোষণা দেয়। ফলে ইন্টারনেটে তথ্য খোঁজের পাশাপাশি বিভিন্ন কাজে কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তাচালিত চ্যাটবটের সাহায্য নিতে পারছেন ব্যবহারকারীরা। এ চ্যাটবটের সুবিধা থাকায় বিং সার্চ ইঞ্জিনের ব্যবহার এরই মধ্যে বেড়েছে কয়েক গুণ।

ডেস্কটপ সংস্করণের পর এবার নিজস্ব মাইক্রোসফট অ্যাকাউন্টের মাধ্যমে ‘এজ’ ও ‘বিং’ সার্চ ইঞ্জিনের অ্যান্ড্রয়েড ও আইওএস সংস্করণের মোবাইল অ্যাপে চ্যাটবটের সুবিধা পাবেন ব্যবহারকারীরা। এ ছাড়া ভিডিও কলিং অ্যাপ স্কাইপেও চ্যাটবটের সুবিধা এনেছে প্রতিষ্ঠানটি।

প্রযুক্তিবিষয়ক ওয়েবসাইট এনগ্যাজেটের প্রতিবেদন অনুযায়ী, মোবাইল অ্যাপের নিচের অংশে থাকা ‘বিং’ বাটনে চাপ দিলে এখন থেকে চ্যাট করতে পারবেন ব্যবহারকারীরা। এজ মোবাইল অ্যাপের বেলায় ব্যবহারকারী হোমপেজ থেকেই চ্যাটবট চালু করতে পারবেন। ভিডিও কলিং অ্যাপ স্কাইপেও চ্যাটবটটি ব্যবহারের সুযোগ পাবেন ব্যবহারকারীরা।

২০১৯ সালে ওপেনএআইতে ১০০ কোটি ডলার বিনিয়োগ করেছে মাইক্রোসফট করপোরেশন। সে সময় চ্যাটজিপিটির কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা ব্যবহারের মাধ্যমে সার্চ ইঞ্জিন বিংয়ের আরেকটি ভার্সন তৈরির কাজ চলছিল। গত ৩০ নভেম্বর পাবলিক টেস্টিংয়ের জন্য চ্যাটবট উন্মুক্ত করে দেয় ওপেন এআই।

এ প্রতিষ্ঠানটিও টেসলা ও টুইটারের মালিকানাধীন ইলোন মাস্কের। সম্প্রতি ওপেনএআইতে মাইক্রোসফট এক হাজার কোটি ডলার বিনিয়োগ করতে যাচ্ছে বলে জানা গেছে। এর মাধ্যমে সানফ্রান্সিসকোভিত্তিক প্রতিষ্ঠানটির বাজারমূল্য দাঁড়াবে ২ হাজার ৯০০ কোটি ডলার।

চীনের সার্চ ইঞ্জিন জায়ান্ট বাইদু তাদের নিজস্ব কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তাভিত্তিক পরিষেবা চালুর কথা জানিয়েছে। বাইদুর ওয়েনশিন ইয়েন বা এরনি বট মার্চে প্রকাশ্যে আসতে পারে বলে জানা গেছে। গুগলের মূল প্রতিষ্ঠান অ্যালফাবেট চ্যাটজিপিটির প্রতিদ্বন্দ্বীর নাম দিয়েছে ‘‌বার্ড’।

চ্যাটজিপিটি বাজারে আসার পরই সার্চ ইঞ্জিন ব্যবসার ভবিষ্যৎ নিয়ে চিন্তায় পড়ে যায় গুগল। অনেকের মতে, এ জাতীয় চ্যাটবটই ভবিষ্যতে সার্চ ইঞ্জিনের স্থান দখল করবে। এমন পরিস্থিতিতে গুগল আগেভাগে কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তার বটের জগতে প্রবেশ করল।

গুগলের প্রধান নির্বাহী সুন্দর পিচাই এক ব্লগ পোস্টে বলেন, ‘আপাতত কয়েকজন বিশ্বস্ত পরীক্ষকের জন্য এ পরিষেবা চালু করা হবে। কয়েক সপ্তাহের মধ্যে সেটি সবার জন্য উন্মুক্ত করে দেওয়া হবে।’ তিনি আরও বলেন, ‘আমাদের বৃহৎ ভাষা মডেলগুলোর শক্তি, বুদ্ধিমত্তা ও সৃজনশীলতার সঙ্গে বিশ্বের জ্ঞানের পরিধিকে একত্র করতে চায় বার্ড।

শক্তি, বুদ্ধিমত্তা ও সৃজনশীলতার একটি মিশেল হয়ে উঠতে চলেছে বার্ড। ব্যবহারকারীদের দেয়া উত্তরের ভিত্তিতে একটি নলেজ বেজ তৈরি করবে এটি। সেই সঙ্গে ওয়েবে যেসব তথ্য পাওয়া যায়, সেসব কিছুকে একত্র করে ইউজারকে একটি ইউনিক পরিষেবা দেওয়ার চেষ্টা করবে চ্যাটবট সার্ভিসটি।

তবে এরই মধ্যে বার্ডের সামান্য ভুলে ১৬ হাজার ৩০০ কোটি ডলার শেয়ারদর পতন দেখেছে গুগল। ঘটনাটি একদিকে যেমন কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা নিয়ে বিনিয়োগকারীদের মনস্তত্ত্ব জানিয়ে দেয়, অন্যদিকে তুলে ধরে প্রযুক্তির দুনিয়ার পরিবর্তনকে। বাস্তবিক অর্থেই কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তার উত্থান ক্রমেই পরিবর্তন নিয়ে আসছে অর্থনীতির অঙ্গনে।

গুগল অবশ্য এখানেই থেমে থাকেনি। প্রতিযোগিতায় টিকে থাকতে এবার অ্যানথ্রোপিকে ৩০ কোটি ডলার বিনিয়োগ করেছে সফটওয়্যার জায়ান্ট গুগল। গত বছরের শেষে ফাইন্যান্সিয়াল টাইমসের এক প্রতিবেদনে এ স্টার্টআপ প্রতিষ্ঠানে গুগলের ৩০ কোটি ডলার বিনিয়োগের বিষয়টি উঠে আসে।

বিনিয়োগের বদলে অ্যানথ্রোপিকের ১০ শতাংশ মালিকানার পাশাপাশি ক্লাউড কম্পিউটিংয়ের বিভিন্ন রিসোর্স কেনার শর্ত জুড়ে দেয় গুগল। অ্যানথ্রোপিকের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা (সিইও) ডারিও আমোদেই বলেন, ‘গুরুত্বপূর্ণ কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা প্রযুক্তির উন্নয়ন, প্রশিক্ষণ প্রদান ও কার্যকরে গুগল ক্লাউডের অংশীদার হতে পেরে আমরা আনন্দিত।’

প্রযুক্তি সংবাদমাধ্যম ভার্জ প্রকাশিত প্রতিবেদন অনুযায়ী, গুগলের এ কার্যক্রম অনেকটা মাইক্রোসফট আর ওপেনএআইয়ের মধ্যকার অংশীদারত্বের মতোই। সেখানে ওপেনএআই গবেষণা দক্ষতার বিষয়টি পর্যবেক্ষণ করে। এদিকে সাধারণ ক্ষেত্রে ব্যবহারের উদ্দেশ্যে নিজস্ব চ্যাটবটও তৈরি করছে অ্যানথ্রোপিক। চ্যাটজিপিটির এ সম্ভাব্য প্রতিদ্ব›দ্বীর নাম ‘ক্লড’।

চ্যাটজিপিটির সঙ্গে প্রতিযোগিতায় নেমেছে একের পর এক প্রযুক্তি জায়ান্ট। এ তালিকায় সর্বশেষ সংযোজন ই-কমার্স জায়ান্ট আলিবাবা। গতকাল জ্যাক মা প্রতিষ্ঠিত কোম্পানিটি জানায়, তারা চ্যাটজিপিটির মতো টুল চালু করবে। চীনের এ ই-কমার্স জায়ান্ট জানায়, প্রতিষ্ঠানটি অভ্যন্তরীণভাবে কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা নির্ভর চ্যাটবটের পরীক্ষা চালাচ্ছে। তবে এটি কবে নাগাদ প্রকাশ্যে আসবে বা এর নাম কী হবে সে বিষয়ে বিস্তারিত কিছু জানা যায়নি।

মার্কিন সংবাদমাধ্যম সিএনএনকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে আলিবাবার এক মুখপাত্র বলেন, ‘২০১৭ সালে ডামো (ডিএএমও) তৈরির পর ভাষা শিক্ষার বিভিন্ন মডেল ও জেনারেটিভ কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা আমাদের প্রধান লক্ষ্য ছিল। প্রযুক্তি খাতের পথপ্রদর্শক হিসেবে আমরা গ্রাহকদের পরিষেবায় উন্নত উদ্ভাবন যুক্ত করতে বিনিয়োগ অব্যাহত রাখব।’

আরো পড়ুন

এস এন্ড এফ মিডিয়া কমিউনিকেশন লিমিটেড © সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

Developer Design Host BD