বুধবার, ২৯ নভেম্বর ২০২৩, ০৫:০০ পূর্বাহ্ন

সংখ্যাতত্ত্বে কাতার বিশ্বকাপ

স্পোর্টস ডেস্ক
  • সর্বশেষ আপডেট : সোমবার, ২১ নভেম্বর, ২০২২
  • ৬৫ বার পড়া হয়েছে / ইপেপার / প্রিন্ট ইপেপার / প্রিন্ট

কাতার বিশ্বকাপ ফুটবল শুরুর সময়টা বিশ্বজুড়ে কাটছে ঘণ্টার কাটায় কাটায়। এদিকে কাতার বিশ্বকাপ নিয়ে শুরু থেকে আলোচনা-সমালোচনায় চলছে সময়ে অসময়ে। এটি নভেম্বর-ডিসেম্বর শুরু হওয়া ফিফার সবচেয়ে বড় টুর্নামেন্ট। স্টেডিয়াম নির্মাণে বিপুল ব্যয়, বিশ্বকাপ আয়োজনের শর্ত পেতে ঘুষ, নির্মাণ শ্রমিকের প্রাণহানি, মানবাধিকার লঙ্ঘন ইত্যাদি নানা বিষয় সংখ্যাতত্ত্বের মধ্যেই পড়েছে। কাতারে ফুটবল বিশ্বকাপ আয়োজনে খরচ হচ্ছে ২০০ বিলিয়ন ডলার। এর আগে রাশিয়ায় ফুটবল বিশ্বকাপ আয়োজনে খরচ হয়েছিল মাত্র ১১ বিলিয়ন ডলার। অর্থাৎ কাতার ব্যয় করছে রাশিয়ার থেকে ১৭ গুণ বেশি। ২০১০ সালে ফিফা কাতারকে আয়োজনের শর্ত দেওয়ার সময় যে মানবাধিকার আইন এবং শ্রমিক স্বার্থ মানার অনুরোধ করেছিল, তার কোনোটাই মানা হয়নি।আনুষ্ঠানিকভাবে এই কয়জন নির্মাণ শ্রমিক নিহত হওয়ার কথা স্বীকার করেছিল কাতার কর্তৃপক্ষ। সত্যিকার অর্থে কতজন নির্মাণ শ্রমিক নিহত হয়েছেন, তা অনেকের কাছেই অজানা। ২০১০ সালের পর ভারত-পাকিস্তান-নেপাল-বাংলাদেশ ও শ্রীলঙ্কা থেকে আগত সাড়ে ছয় হাজার নির্মাণ শ্রমিক কাতারে নিহত হয়েছেন বলে গার্ডিয়ান সংবাদ প্রকাশ করেছিল। ২০১৯ সালে কার্ডিওলজি জার্নালের তথ্যমতে, কাতারে ২০০ নেপালি শ্রমিক হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে মৃত্যুবরণ করেছিলেন। এটিও অস্বীকার করেছে কাতার।অ্যামনেস্টি ইন্টারন্যাশনালের দেয়া হিসাব মতে, কাতারে গত ১২ বছরে অবিচারের শিকার হওয়া অভিবাসী শ্রমিকের সংখ্যা এক লাখেরও বেশি। অ্যামনেস্টির তথ্যমতে, কাতারে অভিবাসী শ্রমিকদের দিনে ১৪-১৮ ঘণ্টা ডিউটি করতে হয়েছে। কাতারে কাজ করা অভিবাসীদের ন্যূনতম মাসিক বেতন ঘণ্টা হিসেবে মাত্র ১ পাউন্ড করে দেয়া হয়। কাতারে অভিবাসী শ্রমিকের কাজ পাওয়ার জন্য ভারত-বাংলাদেশ ও নেপালের শ্রমিকদের কাছ থেকে সর্বোচ্চ ৩ হাজার ডলার নেওয়া হয়েছে। সংবাদমাধ্যমের স্বাধীনতা ইনডেক্সে ১৮০ দেশের মধ্যে কাতারের অবস্থান ১১৯। কাতারের পেনাল কোডের আর্টিকেল ২৮১ অনুযায়ী বিয়ে বহির্ভূত যৌন সম্পর্কের কারণে যে কোনো নারী-পুরুষকে ৭ বছরের কারাদণ্ডের বিধান আছে।২০২২ সালের বিশ্ব মানবাধিকার সংস্থার রিপোর্ট অনুযায়ী, ২০১৯ থেকে ২০২২ সালের মধ্যে সমকামী, রূপান্তরকামী ১১ জনকে জেলহাজতে পাঠানো হয়েছে। ফিফার কাছে অ্যামনেস্টি ইন্টারন্যাশনাল কাতারে মৃত শ্রমিকদের জন্য ৪৪০ মিলিয়ন ডলার ক্ষতিপূরণ দেওয়া উচিত বলে দাবি তুলেছে। এটি এবারের বিশ্বকাপের মোট পুরস্কার মূল্যের সমান।

আরো পড়ুন

এস এন্ড এফ মিডিয়া কমিউনিকেশন লিমিটেড © সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

Developer Design Host BD