মঙ্গলবার, ১৮ জুন ২০২৪, ১২:০৭ পূর্বাহ্ন

আইএমএফের ঋণের পথ কি এতোই ‘জটিল’

নিজস্ব প্রতিবেদক
  • সর্বশেষ আপডেট : বুধবার, ৯ নভেম্বর, ২০২২
  • ১০০ বার পড়া হয়েছে /

বাংলাদেশ সফররত আন্তর্জাতিক মুদ্রা তহবিলের (আইএমএফ) প্রতিনিধিদল আজ বুধবার (৯ নভেম্বর) বিদায় নিচ্ছেন। বিদায়ের আগে অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামালের সাথে তারা আজ শেষ বৈঠক করবেন। গত ২৬ অক্টোবরে ঢাকায় আসেন প্রতিনিধিদলটি।আজ শেষ দিনে তারা অর্থমন্ত্রীকে তাদের কাছ থেকে ঋণ পাওয়ার বিষয়ে আভাস দিয়ে যাবেন বলে নির্ভরযোগ্য সূত্রে জানা গেছে। অন্যদিকে অর্থ মন্ত্রণালয় সূত্রে জানা গেছে, আইএমএফ ঋণ পাওয়ার জন্য যেসব শর্তের কথা বলেছে তা সার্বজনীনভাবে আলাপ-আলোচনা হয়েছে। আলাপে প্রতিনিধিদল সন্তোষ প্রকাশ করেছেন। তবে কোনো কোনো ক্ষেত্রে মতপার্থক্য থাকলেও তা সরকারের প্রয়োজনে পর্যায়ক্রমে তা বাস্তবায়নের উদ্যোগ নেওয়া হবে বলে অবহিত করা হয়েছে।আজ অর্থমন্ত্রীর সাথে বৈঠকে আবারো কোনো কোনো বিষয়ে আলোচনা হতে পারে বলে আভাস পাওয়া গেছে। গত কয়েক দিনে বাংলাদেশ ব্যাংকসহ বিভিন্ন বিভাগ ও সংস্থার সাথে যে আলাপ-আলোচনা হয়েছে তার একটি সংক্ষিপ্তসার অর্থমন্ত্রীর জন্য প্রস্তুত করা হয়েছে বলে অর্থ বিভাগের দায়িত্বশীল এক কর্মকর্তা জানিয়েছেন। এই সংক্ষিপ্তসার নিয়েই অর্থমন্ত্রী আলোচনার সূত্র করতে পারেন।আইএমএফের কাছ থেকে ৪৫০ কোটি ডলারের ঋণ পাওয়ার বিষয়টি বাংলাদেশ এখন ইতিবাচক হিসেবে দেখছে। কারণ যেসব শর্ত দেওয়া হয়েছে তার সব কিছু প্রতিপালনের জন্য সরকার প্রস্তুত। তবে কোনো কোনো ক্ষেত্রে আপত্তি থেকেই যাচ্ছে। এর মধ্যে অন্যতম হচ্ছে সারে ভর্তুকি কমানো আর বিদ্যুতের দাম বাড়ানো। রাজনৈতিক সিদ্ধান্ত অনুযায়ী এই দুটি বিষয়ে সরকার অনড় থাকতে পারে বলে আভাস পাওয়া গেছে। আইএমএফের ঋণ পেতে সরকার এক কৌশল অবলম্বন করতে পারে, যেন কোনোভাবেই আসন্ন জাতীয় সংসদে নির্বাচনে কোনো ধরনের প্রভাব না পড়ে।বিশ্লেষকরা বলছেন, আইএমএফের দেওয়া শর্তগুলো জটিল মনে হতো না, যদি দেশের ব্যাংকিং সিস্টেমে স্বচ্ছতা থাকতো। রাজস্ব আদায়ের বিষয়টিও এর ব্যতিক্রম নয়। তবে এসব ব্যবস্থাপনায় স্বচ্ছতা আনা গেলে কেবল ঋণের জন্য নয়, দেশের জন্য মঙ্গলকর।এদিকে আজ অর্থমন্ত্রীর সাথে আইএমএফের প্রতিনিধিদলের বৈঠকে রাজনৈতিক সরকারের জনগণের কাছে প্রতিশ্রুতির বিষয়গুলো অবহিত করা হতে পারে বলে আভাস পাওয়া গেছে। বৈঠকের পর গণমাধ্যমের কাছে বিফ্রিং করার সম্ভাবনাও রয়েছে।জানা গেছে, আইএমএফের প্রতিনিধিদল সফর শেষে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে প্রধান কার্যালয়ে তাদের মতামত সংবলিত সুপারিশ উপস্থাপন করবেন। পরবর্তী সময়ে আইএমএফের বোর্ড সভায় অনুমোদনের জন্য উপস্থাপন করা হবে। অনুমোদন সাপেক্ষে বাংলাদেশ প্রথম দফায় প্রথম কিস্তির ঋণ পাবে।

আরো পড়ুন

এস এন্ড এফ মিডিয়া কমিউনিকেশন লিমিটেড © সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

Developer Design Host BD